নির্মাতা

Nihar Bhowmick

[email protected]

Village: Briraynagor, Post : Handial , Upazilla : Chatmohar, District : Pabna

৭ ই মার্চঃ স্বাধীনতার মহাকাব্য

ভিউ

28

শেয়ার করুন

ঐতিহাসিক ৭ মার্চ। ১৯৭১ সালের এই দিনে রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) এক জাদুকরী ভাষণে বাঙালি জাতিকে স্বপ্নে বিভোর করেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তারপর সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ, ৯ মাসের লড়াই এবং স্বাধীনতা অর্জিত হয়। ১৯৭০ সালে আওয়ামী লীগ পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ নির্বাচনে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। কিন্তু সামরিক শাসকগোষ্ঠী আওয়ামী লীগ তথা বাঙালিদের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর না করে নানামুখী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। জবাবে ক্ষুব্ধ বাঙালি রাজপথে নেমে আসে। পাকিস্তান রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ২৪ বছরের আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতিসত্তা, জাতীয়তাবোধ ও জাতিরাষ্ট্র গঠনের যে ভিত রচিত হয়, তারই চূড়ান্ত পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু ৭ মার্চের ভাষণ দেন। ছাত্র-কৃষক-শ্রমিকসহ সর্বস্তরের বাঙালি নতুন প্রেরণা খুঁজে পায়। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিজয় ছিনিয়ে আনে বাঙালি জাতি। বিশ্বমানচিত্রে জন্ম নেয় স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ। কিন্তু শুধু এতেই ৭ ই মার্চের মাহাত্ম্য শেষ হয়ে যায় না ! স্বাধীনতার ৫০ বছর পরেও একটি স্কুলগামী শিশু, সেও যুগ যুগ আগের বঙ্গবন্ধুর সেই কালজয়ী ভাষণে নিজের চেতনার অস্তিত্ব খুজে পায়। বঙ্গবন্ধুর সেই দূরদর্শী ভাষণ তার ভেতরেও এক অকৃত্রিম দেশপ্রেমের সঞ্চার করে। রাস্তার জায়ান্ট স্ক্রিনে সেই ভাষণ দেখতে পেয়ে সে বারংবার মুগ্ধ হয়, বঙ্গবন্ধুকে সে পরম শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে, তার ভেতরেও জন্ম নেয় আরেকটি মুজিব!